সুরমিক মেয়েদের সংস্কৃতি:
লেখক ইঞ্জিঃ মোঃ অমর ফারুক 
সুরমিক পৃথিবীর সবচেয়ে অদ্ভুদ জাতি।এই জাতির মেয়েদের বিয়ে করার শর্ত সমূহ খুবই নিষ্ঠুর অমানবিক।
আমাদের পৃথিবীতে বিভিন্ন জাতির বা গোষ্ঠী বসবাস করে থাকে।এসব জাতি বা গোষ্ঠীর চাল-চলন সংস্কৃতি একেক রকম হয়ে থাকে।

আজ আমরা যে জাতি সম্পর্কে জানবো ,সেটি হলো সুরমিক বা সুরমা জাতি ।এই জাতির আরো একটি নাম হলো 'সুরি' জাতি। এই জাতির মেয়েদের বিয়ের বয়স হলে,তাদের বিয়ে করার কিছু নিষ্ঠুর যোজ্ঞতা অর্জন করতে হয় ।
সুরমিক মেয়েরা যখন বিয়ের বয়সে পৌঁছে যায়, তখন তাদের চোয়ালের নীচের দাঁতগুলো  একটি পাথর দিয়ে ভেঙে দেওয়া হয়।

ulture-of-the-surma-woman,
culture-of-the-surma-woman
Culture-of-the-surma-woman
Culture-of-the-surma-woman
culture-of-the-surma-woman
culture-of-the-surma-woman
 তারপরে নীচের ঠোঁটটি ছুরি দিয়ে থুতনি থেকে কেটে, নিচের ঠোঁটটি প্রসারিত করা  হয়। এবং সেখানে একটি কাঠের প্লেট স্থাপন করা হয়। সেই প্লেটটি প্রতিটি পিরিয়ডকে প্রতিটি পিরিয়ড দ্বারা প্রতিস্থাপিত করা হয় কাঙ্ক্ষিত আকারে পৌঁছানো পর্যন্ত, একটি সময় পরে যখন ঠোঁট কাঙ্ক্ষিত আকারে পৌঁছায় তখন থেকে প্লেটের চারপাশে মৃতশিল্প স্থাপন করা হয়।

সুরমিক উপজাতির মহিলারা এটিকে প্রসাধনী প্রক্রিয়া হিসাবে বিবেচনা করে থাকে। যা মহিলার সৌন্দর্য এবং অবস্থান নির্দেশ করে।এবং মেয়েদের ঠোঁটের আকারের অনুপাতে উপর যৌতুকের পরিমাণ  বৃদ্ধি পায় !!

culture-of-the-surma-woman
culture-of-the-surma-woman
সুরমিক উপজাতির মহিলারা এটিকে প্রসাধনী প্রক্রিয়া হিসাবে বিবেচনা করে থাকে। যা মহিলার সৌন্দর্য এবং অবস্থান নির্দেশ করে।এবং মেয়েদের ঠোঁটের আকারের অনুপাতে উপর যৌতুকের পরিমাণ  বৃদ্ধি পায় !!
একই সাথে মেয়েদের কানের লতি সহ কানের ছিদ্র বড় করে চামড়া প্রসারিত করতে হয়। এই প্রসারিত ছিদ্রে কাঠের বা মাটির তৈরি এক প্রকার গোলাকার প্রসাধনী গহনা পড়তে হয়। এবং একটি নির্দিষ্ট সময় কাল পর্যন্ত মাথা নেড়া করে রাখতে হয়।

সুরমিক জাতির ভৌগলিক অবস্থানঃ-

ইথিওপিয়া অঞ্চলের  দক্ষিণ সুদানে সুরমিক জাতি বসবাস করে।

সুরমা জাতি সম্মিলিত ত্রি নৃগোষ্ঠীর দ্বারা গঠিত। গোষ্ঠীগুলো হলোঃ- চই, টিমাগা এবং সুরি বেয়ালে।


সুরমা বা সুরমিক জাতির মোট জনসংখ্যা :
(১৯৯৮ সালের জরিপ অনুযায়ী - ৮০,০০০)
(২০০৭ সালের জরিপ অনুযায়ী - ১৮৬,৮৭৫)

সুরমা বা সুরমিক জাতির ভাষা :
সুরি, মুরসী, মিয়ান , ভাষার অন্তর্ভুক্ত।

সুরনা বা সুরমিক জাতির ধর্ম:
তারা সংস্থালু খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের মানুষ।

আল্লাহ পৃথিবীতে কতোইনা নানান ধরনের জাতি ও সম্প্রদায় সৃষ্টি করেছেন। এক এক জাতির এক এক রকম আচার-আচরণ, কৃষ্টি-কালচার বড়ই অদ্ভুত!!
আমরা সৌন্দর্যের এমন উপাদান গুলো সম্পর্কে  কিছুই জানতাম না!!

প্রিয় পাঠক আমাদের প্রকাশিত কলাম আপনার কেমন লেগেছে ,অবশ্যই মন্তব্য করে জানাবেন। আমাদের কলাম গুলো আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করে, আমাদের পাশে থাকুন। আপনাদের সার্পোট পেলে আমরা আরো শিক্ষানীয় কলাম লিখতে উৎসাহিত হই।

বিঃদ্রঃ এই সাইটের কন্টেন্ট কপি করা আইনত অপরাধ। 

Post a Comment

Previous Post Next Post